ফটোগ্রাফির এদিক সেদিক

Image collected from internet
Image collected from internet

১. আপনার একটা দামী ক্যামেরা আছে ! এর মানে এই না যে আপনি একজন ভালো ফটোগ্রাফার হয়ে গেলেন।

২. সবসময় র-তে শ্যুট করার চেষ্টা করুন। কেন ? এর উত্তরটা একটু কষ্ট করে গুগলে খুঁজে নিন।

৩. প্রাইম লেন্স আপনাকে ভালো ফটোগ্রাফার হতে সাহায্য করবে।

৪. ছবি তোলার মত ছবি প্রসেস করতে পারাটাও একটা আর্ট।

৫. রুল অব থার্ড থিওরি ৯৯% সময়ই কাজে আসবে। মাইন্ড ইট।

৬. ম্যাক্রো ফটোগ্রাফি আম-জনতার জন্য না।

৭. শুধুমাত্র ল্যান্ডস্কেপ ফটোগ্রাফির ক্ষেত্রে UV ফিল্টার কাজ করে। বাকি সময় ইউজ না করলেও চলে।

৮. বিভিন্ন ফটোগ্রাফিক ফোরামে ঘোরাঘুরি না করে ক্যামেরাটা নিয়া বাইরে গিয়ে ঘোরাঘুরি করুন। কাজে আসবে।

৯. আপনার চারপাশে যা কিছু আছে তার মধ্য থেকেই সুন্দর কিছু খুঁজে বের করার চেষ্টা করুন। শিওর থাকতে পারেন, আপনি এতে করে একটা ভালো ছবিই পাবেন।

১০. ফিল্ম ডিজিটাল ফরমেটের চেয়ে ভাল না।

১১. ডিজিটাল ফরমেট ফিল্মের চাইতে ভাল না । (১০,১১ নাম্বার পয়েন্ট পড়ে কিছু বুঝলেন ? ভাবুন। উত্তর পেয়ে যাবেন)

১২. ক্যামেরা বা লেন্স কোন জাদুর ডিব্বা না।

১৩. ভালো লেন্স থাকলেই যে ভালো ছবি তুলতে পারবেন এই কথা আপনাকে কে বলছে মশাই ? লেন্সের সাথে সেন্সও লাগে।

১৪. অন্যের ছবি দেখে হা-হুতাশ না করে নিজের ছবির দিকে মনযোগ দিন । এতে আপনারই লাভ।

১৫. বিয়ে বাড়ি, জন্মদিন, সুন্নতে-খৎনা সব জায়গাতে প্রয়োজন ছাড়া DSLR নিয়া যাবার দরকার নেই। এখনকার মোবাইল ফোনেও বেশ ভালো মানের ছবি আসে। সেটা দিয়াই কাজ চালান।

১৬। নারীকূলের লাইক কমেন্ট অধিকাংশ ফটোগ্রাফারদের একটা আলাদা ইন্সপারেশনের কাজ করে।

১৭। রেডিমেট ফিল্টার ইউজ করে ছবিকে সাদা-কালো না করে নিজের মাথা খাটিয়ে কাজটা করা উত্তম।

১৮। ছবিতে ফটোশপ ইউজ করছেন শুনলে আম জনতা নাক শিটকাবেই । তার চেয়ে বলেন ছবিটারে ডিজিটাল ডার্করুমে প্রসেস করছেন। একটু ভাব নিলেন আর কি ।

১৯. দুনিয়ার সব কিছুর ছবি তোলা লাগবে এমন ঠ্যাকা আপনার পড়ে নাই। যেটা ভাল লাগবে সেটাই তুলবেন।

২০. পারলে ছবিগুলাকে দুই জায়গাতে ব্যাক-আপ রাখুন। আপদ বিপদের কথা কে বলতে পারে ?

২১. ছবি তোলার সময় সাবজেক্টের কাছে যাবার চেষ্টা করুন।

২২. ছবি তোলার সময় নিজেকে ভিউয়ার না , ভিকটিম হিসেবে কল্পনা করুন।

২৩. মাঝে মাঝে একটু নিচু হয়ে বা লোয়ার এ্যাঙ্গেল থেকে ছবি তোলার চেষ্টা করুন । মজার কিছু ছবি পেয়ে যেতে পারেন।

২৪. ফটোগ্রাফির ট্যাকনিক্যাল টার্ম নিয়া বেশী মাথা না ঘামিয়ে কম্পোজিশন নিয়া মাথা ঘামান। লাভ আপনারই হবে।

২৫. স্ট্রিট ফটোগ্রাফি করার সময় ক্যামেরার লোগো স্কচটেপ দিয়ে ঢেকে দিয়েন। ক্যামেরা হুট করে কারো চোখে পরবে না। ক্যামেরা হাইড করা সহজ হবে।

২৬. কটকটা দুপুরের রোদে কিছুটা আন্ডার এক্সপোজড করে ছবি নিয়ে দেইখেন তো । কি রেজাল্ট আসে !!

২৭. যত বেশী ছবি তুলবেন তত বেশী ভালো ছবি পাবার সম্ভাবনা বাড়বে।

২৮. এক্সপোজার, এ্যাঙ্গেল কিংবা এ্যাপারচার চেঞ্জ করে একই সাবজেক্টের কয়েকটা ছবি তুলে রাখা ভাল । কে জানে কোন ছবি কখন কাজে আসবে।

২৯. অন্যরে দেখানোর সময় ভালো ছবিটাই দেখান। আউল-ফাউল শট দেখাইয়া নিজের ইম্প্রেশন খারাপ করার কি দরকার ?

৩০. ছোট মরিচের ঝাল বেশী। তাই পি এন এস বা মোবাইল ফোনের ক্যামেরাকে ছোট করে দেখার কোন কারন নাই ।

৩১. অনলাইন ফটোগ্রাফিক কমিউনিটির সাথে যোগাযোগ থাকা ভাল । আলাপ আলোচনার মাঝে অনেক কিছু শেখা যায়।

৩২. অন্যের ছবির গঠমূলক সমালচনা করতে শিখুন।

৩৩. ভাবিয়া তুলিও ছবি, তুলিয়া ভাবিও না।

৩৪. একটা ভাল ছবি নিজেই কথা বলে। তার জন্য চৌদ্দ লাইনের ডিসক্রিপশনের দরকার হয় না।

৩৫. না মানে বলছিলাম যে, নেশাপানি আর ফটোগ্রাফি ঠিক একসাথে যায় না।

৩৬. অন্যের ছবি থেকে অনুপ্রেরণা নিতে পারেন। তাই বলে অন্যের ছবি কপি করতে যাবেন না আবার ।

৩৭. মানেন আর না মানেন, ছবির গ্রেইনের মাঝে একটা আলাদা সৌন্দর্য আছে।

৩৮. সম্ভব হলে ক্যামেরার ব্যগে একটা ব্যাকড্রপ রাখতে পারেন। সুবিধামত কাজে লাগাতে পারবেন।

৩৯. ছবিকে যতটা সম্ভব সিম্পল রাখার চেষ্টা করুন।

৪০. ফটোগ্রাফি আসলে কি ? আলো দিয়েই ছবি আঁকা । তাইনা ? তাহলে আলোর ব্যবহারেই মনযোগ দিন।

৪১. ফটোগ্রাফিতে নিজের একটা স্ট্যাইল তৈরী করার চেষ্টা করুন। এত করে ছবি ভর্তি লোগো বসানোর কাজটা কমে যাবে।

৪২. সম্ভব হলে পোস্ট প্রোসেসিং এর সময় ডুয়েল মনিটর ব্যবহার করুন। কাজ করতে অনেক সুবিধা পাবেন।

৪৩. সিলভার এফেক্স প্রো । এই ফটোশপ প্লান-ইন টার নাম শুনছেন ? না শুনলে শুনে রাখুন… সাদা-কালো ছবি তৈরীরে এটা বেস্ট প্লাগ-ইন।

৪৪. যেখানেই যান সাথে একটা ক্যামেরা রাখুন। হোক সেটা মোবাইল বা পয়েন্ট এন্ড শুট ক্যামেরা। কখন, কোথায় যে ছবি পেয়ে যাবেন কেউ জানে না।

৪৫. ফটোগ্রাফিটাকে উপভোগ করতে শিখুন। মজা নিয়ে ছবি তুলুন।

৪৬. ক্যামেরা আপনার ছবি তোলার একটা টুলস মাত্র । এর বেশী কিছু না । তাই ক্যামেরার কথা না শুনে নিজের কথা শুনুন।

৪৭. চিপা চুপা দিয়ে ছবি না তুলে সরাসরি সাবজেটের কাছে গিয়েই ছবি তুলুন। ভয় কিসের ?

৪৮. আপনি ছবি তুলতেছেন, চুরি করছেন না । তাই কনফিডেন্টের সাথে ছবি তুলুন।

৪৯. ছবির কম্পোজিশনের জাক্সটা পজিশনের ব্যবহার শিখুন। (জাক্সটা পজিশন কি জানার জন্য কষ্ট করে একটু গুগলের সাহায্য নিন)

৫০. পারলে কিছু ছবি প্রিন্ট করতে দেখতে পারেন । অনুভূতিই আলাদা। ট্রাস্ট মি ।

৫১. নিজের তোলা ছবি প্রিন্ট করে বন্ধু বান্ধবকে গিফট করতেই পারেন ।

৫২. ও হ্যাঁ, ছবি গিফট দেবার সময় ফ্রেম করে দিতে ভুল করবেন না যেন।

৫৩. সাদাকালো ছবি ম্যাট পেপারে প্রিন্ট করুন। দেখতে দারুন লাগে।

৫৪. মাঝে মধ্যে বন্ধু বান্ধবের ছবিও তুলুন । তাদেরও তো আপনার উপরে একটা দাবী আছে । কি বলেন ?

৫৫. কোন ফটোগ্রাফিক ক্লাবে যোগ দিতে পারেন । এতে নলেজ শেয়ারিং বাড়বে।

৫৬. মনে রাখবেন, একটা ছবি কিন্তু একটা নির্দিষ্ট সময়কে ধরে রাখে।

৫৭. অপরিচিত কোন জায়গায় গিয়ে ছবি তলার মাঝে একটা থ্রিলিং ফিল আছে । মাঝে মাঝে এই ফিলটা নিতে দোষের কি ?

৫৮. ক্যান্ডিট ছবি। সোজা কথায়, ধর তক্তা মার পেড়েক । এতো ভাবাভাবির টাইম নাই।

৫৯. ন্যাচারাল লাইটের চেয়ে  ভালো  আর কোন লাইট নাই । তাই যতটা সম্ভব ন্যাচারাল লাইটের ব্যবহার করুন।

৬০. ফুলফ্রেম ক্যামেরায় ৩৫ মিলি লেন্স হর হামেশা ছবি তোলার জন্য ভাল ।

৬১. দরকার পড়লে ISO বাড়াতে পিছপা হবেন না । আগেই বলেছি, গ্রেইন ইজ বিউটি।

৬২. সব সময় সাথে ট্রাইপড বা মনোপড নিয়ে ঘোরার দরকার নেই । যখন লাগবে তখন সাথে নিয়ে বের হবেন।

৬৩. ওভার এক্সপোজড ছবির চাইতে আন্ডার এক্সপোজড ছবি ভাল ।

৬৪. স্ট্রিট ফটোগ্রাফি মানেই রাস্তার ফকিরের ছবি তোলা না।

৬৫. অধিকাংশ সময় দেখা যায়, যখনই ওই দিনের জন্য ছবি তোলা বন্ধ করতে যাবেন তখনই দিনের সেরা ছবিটা পেয়ে যাবেন।

৬৬. এনভার্নমেন্টাল পোট্রেইটগুলা অনেক মজার হয় । ট্রাই করে দেখতে পারেন।

৬৭. ফটোশপ কখনোই অখাদ্য ছবিকে সুখাদ্য করতে পারবে না।

৬৮. ক্যামেরা এখন এতোটাই সহজলভ্য যে সবাই নিজেকে ফটোগ্রাফার ভাবে। আসলেই কি তাই?

৬৯. ভালো ছবি তোলার জন্য আপনাকে বিদেশে যাওয়া লাগবে না। ভালো ছবির ম্যাটেরিয়াল আপনার আশেপাশেই আছে । খুঁজে বের করার দায়িত্ব আপনার।

৭০. টাকা আছে DSLR কিনলেন । কিন্তু DSLR দিয়ে ছবি তোলার আগে ওটাকে কিভাবে ধরতে হয় সেটা শিখে নিয়েন । পাব্লিক প্লেসে উদ্ভটভাবে ক্যামেরা ধরলে লোকে হাসবে কিন্তু।

৭১. ক্যামেরা আপনার ফটোগ্রাফিক টুলস। বাচ্চার খেলনা না।

৭২. কম্পোজিশনের চিন্তা করলে ফটোগ্রাফি আর পেইন্টিস কি খুব বেশী আলাদা ?

৭৩. ফটোগ্রাফি আসলে কোন শখ না … এটা আসলে একটা লাইফ স্ট্যাইল।

৭৪. আপনি ভাল ছবি তুলতে পারেন নাই মানে আপনি পারেন নাই। কোন এক্সকিউজ দিতে যাইয়েন না । ভিউয়ারের আপনার এক্সকিউ শোনার ঠ্যাকা পড়ে নাই।

৭৫. আগেও বলছি…. নিজের একটা ফটোগ্রাফিক স্ট্যাইল তৈরী করার চেষ্টা করুন। অন্যের স্ট্যাইল কপি কইরা কোন লাভ নাই ।

৭৬. একটা ভাল ছবি নিজেই হাজার লাইনের একটা গল্প।

৭৭. সাথে যত বেশী গিয়ার ক্যারি করবেন তত বেশী হ্যাপা পোহাবেন । আরে মশাই ছবি তোলার সময় ছবি তুলবেন নাকি সাথের গিয়ারগুলারে সামলাবেন ?

৭৮. ছবিতে হাসিই ওই মানুষের আসল পরিচয় তুলে ধরে।

৭৯. যেখানেই ছবি তুলতে যান না কেন, ওই পরিবেশের সাথে একেবারে মিশে যান ।

৮০. মজা নিয়ে ছবি তুলুন।

৮১. ভালো খারাপ সব ছবিই জমিয়ে রাখুন । অনেক সময় খারাপ ছবিও কাজে আসে।

৮২. যে স্থান বা মানুষেরই ছবি তুলুননা কেন তার প্রতি পূর্ণ সম্মান বজায় রাখুন ।

৮৩. স্ট্রিট ফটোগ্রাফিতে ক্যান্ডিট শট নেবার ক্ষেত্রে টেলি লেন্সের চেয়ে ওয়াইড এ্যাঙ্গেল লেন্স বেশী কাজের ।

৮৮. যদি ট্রাভেল করতে করতে ফটোগ্রাফি করতে পারেন, তাহলে এর চাইতে ভালো আর কিছু হয় না।

৮৫. ক্যামেরার ইমেজ ইনফোতে গেলে হিস্টোগ্রাম দেখায় । দেখছেন ? ওই হিস্টোগ্রাম বোঝার চেষ্টা করুন, কাজে দিবে ।

৮৬. ছবি ব্লার আসার চেয়ে ছবিতে নয়েজ আসা ঢের ভাল।

৮৭. পারলে বৃষ্টির মাঝেও ছবি তুলুন । বাজারে রেইন প্রোটেক্টর পাওয়া যায় , সেগুলা ইউজ করতে পারেন।

৮৮। ছবি যেহেতু একটা মোমেন্টকে ধরে রাখে তাই ছবি তোলার আগে পারফেক্ট মোমেন্ট বোঝার চেষ্টা করুন।

৮৯. পেটে কিছু দানা পানি দিয়া তারপরে ক্যামেরা নিয়া মাঠে নামুন। খালি পেটে ছবি তুলতে বের হলে কখন মাথা ঘুরাইয়া পইড়া যাইবেন কে জানে

৯০. আপনার তোলা ছবি দিয়ে আপনি নিজেই চিনতে পারবেন ।

৯১. ফটোগ্রাফির যতটুকু জানেন, সেটা অন্যের সাথে শেয়ার করুন।

৯২. ছবি তোলা থামাবেন না । প্রয়োজন হলে মোবাইল দিয়েও তুলতে থাকুন। চর্চাটা চালু রাখা খুব জরুরী।

৯৩. ফটোগ্রাফি শুধু মাত্র ক্যামেরা ক্লিক করে ছবি তোলা না । এটা একটা জীবন দর্শন।

৯৪. সঠিক সময়ে সঠিক ছবিটাই তুলুন।

৯৫. বাকি কথা না হয়  আপনারাই বলুন।

————————————————————-

এরিক কিম এর  লেখা অবলম্বনে

Advertisements

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / Change )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / Change )

Connecting to %s